শুক্রবার, ৭ অক্টোবর ২০২২

চট্টগ্রাম বন্দরের প্রথম জয়, হেরেই চলছে শতদল ক্লাব

ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:০২ অপরাহ্ন

চট্টগ্রাম বন্দরের প্রথম জয়, হেরেই চলছে শতদল ক্লাব

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ ক্রীড়া সমিতি ও শতদল ক্লাব দু’দলই নিজেদের প্রথম ম্যাচে হার দিয়ে চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ শুরু করেছিল। দ্বিতীয় ম্যাচে এসে প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছে বন্দর। অন্যদিকে পরাজয়ের বৃত্ত থেকে বের হতে পারেনি লিগে নবাগত শতদল ক্লাব।

বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রিমিয়ার লিগের খেলায় পিছিয়ে থেকেও বন্দর ২-১ গোলে শতদলকে পরাজিত করে। কদর্মাক্ত পিচ্ছিল মাঠে গতকালও দু’দলের খেলোয়াড়দের খেলতে হয় অতিরিক্ত পরিশ্রম করে। প্রতিদ্বন্দ্বিতাময় এ খেলায় প্রথম এগিয়ে যায় শতদল ক্লাব। প্রথমার্ধের ২৫ মিনিটের সময় বন্দর সীমানায় আক্রমণে উঠা শতদল ক্লাবের সারুয়ার জামান নিপুকে ফেলে দেন বন্দর ডিফেন্ডার মুন্নু মিয়া। রেফারি শরীফুজ্জামান খান টিপু পেনাল্টির বাঁশি বাজান শতদলের পক্ষে। আশরাফউদ্দিন রূপকের পেনাল্টি শট জালে গেলে শতদল এগিয়ে যায় ১-০ গোলে। 

বন্দর খেলায় সমতা নিয়ে আসে ৪১ মিনিটের মাথায়। আগুয়ান সালাউদ্দিনের নিপুন ক্রস বক্সে থাকা মেহেদী হাসান রয়েলের মাথায় পড়ে। তিনি হেড করে শতদল কিপার আরিফুল ইসলাম বাবুকে পরাভূত করেন (১-১)। বন্দর এ সময় বেশ চেপে ধরে শতদলকে। চার মিনিট বাদেই এ থেকে দারুন একটা গোলে এগিয়ে যায় তারা। বাম প্রান্ত দিয়ে আক্রমনে উঠা আল আমিন বক্সে সুন্দর একটা ক্রস দেন। বক্সে কিছুটা জটলার ভেতর বল পান মেহেদী হাসান রয়েল। তিনি প্রথম দফায় বলে শট নেন। শতদল কিপার বাবু তা ফিরিয়ে দেন। ফিরতি বলে এবার হেড নেন রয়েল। তাও ফেরত আসে। তৃতীয় দফায় রয়েল শট করে বল ঢুকিয়ে দেন। বন্দর এগিয়ে যায় শতদলের বিপক্ষে ২-১ গোলে। তিন দফায় দ্বিতীয় গোল পাওয়া উজ্জীবিত বন্দর এ সময় আরো কটি আক্রমণ চালায় শতদল গোলমুখে। এ অর্ধের ইনজুরি টাইমে বন্দরের একটি আক্রমণ ট্যাকল করে সামাল দেন রানা। রক্ষা পায় শতদল।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে বন্দর কর্তৃপক্ষ আক্রমণে ওঠে। ৬৪ মিনিটে দলের বদলি খেলোয়াড় ইমরান হোসেন পাপ্পু দূর থেকে শট নেন। শতদল কিপার বাবু শুয়ে রক্ষা করেন তা। ৭৩ মিনিটে ফাউলের কারণে পাওয়া ফ্রি কিক নেন শতদলের নিপু। তার চমৎকার শটটি বাইরে চলে যায়। এরপর বন্দরের বদলি পাপ্পু দুটি শটের একটি কিপারের হাতে এবং অপরটি কিপারের হাতে লেগে মাঠের বাইরে চলে যায়। ৮৪ মিনিটে শতদলের দিদারের শট বন্দর কিপার শিমুল কুমার দাস ঝাঁপিয়ে পড়ে ধরে নেন। চার মিনিট বাদে গোল শোধের সুন্দর একটি সুযোগ আসে শতদলের কাছে। হৃদয় হাওলাদার বন্দর কিপারকে একা পেয়েও উপর দিয়ে মেরে দেন। শতদলের দুর্ভাগ্য অনেকটা ফাঁকা বারে হৃদয় এ সহজ সুযোগটি নষ্ট করেন। কিছু পরে নিপুর আরেকটি শট বন্দর কিপার শুয়ে পড়ে রক্ষা করেন। শেষ মুহূর্তে বন্দরের পাপ্পু বল নিয়ে এগিয়ে যান শতদল গোলমুখে। কিন্তু তার শট উপর দিয়ে চলে গেলে ২-১ গোলের জয় নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় বন্দরকে। দুই খেলা শেষে বন্দর ৩ পয়েন্ট পেয়েছে। অন্যদিকে সমান খেলায় কোন পয়েন্ট পায়নি শতদল ক্লাব।

গতকালের খেলায় ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হন চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ ক্রীড়া সমিতির মেহেদী হাসান রয়েল। তার হাতে ক্রেস্ট ও নগদ এক হাজার টাকার প্রাইজমানি তুলে দেন সিজেকেএস নির্বাহী সদস্য আবুল হাসেম। 

প্রিমিয়ার লিগে আজ বিকাল সাড়ে ৩ টায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন একাদশ বনাম চট্টগ্রাম মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ব্লুজ পরস্পরের মোকাবেলা করবে।


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন