বৃহস্পতিবার, ৩০ মার্চ ২০২৩

চ্যাম্পিয়ন আবাহনীর তোপে উড়ে গেল ফ্রেন্ডসও

দশে দশ জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৯ মার্চ ২০২৩, ০৬:৪৮ অপরাহ্ন

চ্যাম্পিয়ন আবাহনীর তোপে উড়ে গেল ফ্রেন্ডসও

আগের ম্যাচেই শক্তিশালী ব্রাদার্স ইউনিয়নকে হারিয়ে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই টানা দ্বিতীয়বারের মতো চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের শিরোপা নিজেদের করে নিয়েছিল চট্টগ্রাম আবাহনী। কিন্তু চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরও জয়ের ক্ষুধা এতটুকু কমেনি তাদের। এবার তাদের তোপে উড়ে গেল ফ্রেন্ডস ক্লাবও।

রোববার (১৯ মার্চ) চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ৭১ রানে ফ্রেন্ডস ক্লাবকে হারিয়ে টানা দশ নম্বর জয় তুলে নেয় চট্টগ্রাম আবাহনী।

গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির কারণে দুপুর ১ টায় শুরু হয় লিগের দশম রাউন্ডের প্রথম ম্যাচ। বৃষ্টির বাধায় ম্যাচের আয়ু কমে আসে ২৫ ওভারে। 

টসে জিতে চট্টগ্রাম আবাহনীকে ব্যাট করতে পাঠিয়ে প্রথম ওভারেই তাজুলকে আউট করে সফলতার মুখ দেখে ফ্রেন্ডস।

এরপর আরেকটি উল্লাসের জন্য তাদেরকে অপেক্ষা করতে হয় ১৪ ওভার। এই সময়ের মধ্যে আবাহনী তাদের রান নিয়ে যায় ৮৭-তে। পাশাপাশি টানা দ্বিতীয় হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন শোয়েব। ৫১ বলে ৫১ রান করার পথে শোয়েব বলকে সীমানা ছাড়া করেন ৮ বার। যার ১টি আবার হাওয়ায় ভাসিয়ে। 

শোয়েবের বিদায়ের একটু পর ৩৮ বলে ২টি চার ও ৪টি ছয়ে ৪৫ রান করে ফেরেন আরেক ওপেনার সানজুও। 

আবাহনীকে শেষ দিকে ঝোড়ো সংগ্রহ এনে দেওয়া অভ্যাসে পরিণত করা জীবনের সাথে রান করতে ব্যর্থ হন ওমর। তবে আবাহনীকে ভাবনায় পড়তে হয়নি আজকেই প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা প্রথম শ্রেণির মারকুটে ব্যাটার মিজানুর রহমানের ৩৯ বলে ৪ চার ও ৫ ছয়ে ৬২ রান এবং শেষ দিকে মহিউদ্দিনের ১২ বলে ১টি করে চার-ছয়ে ২১ রানের বদৌলতে। ফলে চট্টগ্রাম আবাহনী নির্দিষ্ট ২৫ ওভারে ১৯৫ রানের বিশাল সংগ্রহ করে।

ফ্রেন্ডস ক্লাবের ইকবাল বাহার নেন ৩ উইকেট।

জবাব দিতে নেমে আবাহনীর স্পিনারদের সামনে সাচ্ছন্দ্যে ব্যাট করতে পারেনি ফ্রেন্ডস ক্লাবের ব্যাটারররা। ফলে পুরো ২৫ ওভার খেলে তারা ৯ উইকেট হারিয়ে ১২৪ রান করতে পারে।

তাদের পক্ষে আকিব সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেন। এছাড়া, রমজান ২৪, আব্দুল্লাহ ২০, ফয়সাল ১৫ এবং শাওন ১০ রান করেন।

চট্টগ্রাম আবাহনীর পক্ষে আকাশ ও ইমরান নেন ২টি করে উইকেট।

 

 


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন