বুধবার, ৫ অক্টোবর ২০২২

ওয়াকারের বিরুদ্ধে এবার নতুন অভিযোগ আনলেন শেহজাদ

স্পোর্টস ডেস্ক

০৪ জুলাই ২০২২, ০৫:২২ অপরাহ্ন

ওয়াকারের বিরুদ্ধে এবার নতুন অভিযোগ আনলেন শেহজাদ

সময়টা ভালো কাটছে না ওয়াকার ইউনিসের। কিছুদিন আগেই পাকিস্তানের সাবেক দুই কোচ মিকি আর্থার আর ওয়াকারকে অপেশাদার বলে আলোচনার জন্ম দিয়েছিলেন উমর আকমল। সে আলোচনা থামতে না থামতেই নতুন অভিযোগের ডালি নিয়ে হাজির হয়েছিলেন সাবেক পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান আহমেদ শেহজাদ। 

বলেছিলেন, তাঁর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শেষ হওয়ার পেছনে কলকাঠি নেড়েছিলেন পাকিস্তানের এই কিংবদন্তি পেসার। ২০১৬ সালে সে সময়ের পাকিস্তান দলের কোচ ওয়াকার ইউনিস তাঁর সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন বোর্ডের কাছে দিয়েছিলেন। সেই প্রতিবেদন তাঁর ক্যারিয়ারকে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত করেছে বলেই মনে করেছিলেন শেহজাদ।

এবার উমর আকমল-আহমেদ শেহজাদের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন রমিজ রাজা জুনিয়র। ‘সিনিয়র’ রমিজ রাজার ক্যারিয়ারের সঙ্গে এই রমিজের ক্যারিয়ারের কোনো তুলনা চলে না যদিও, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুটি টি-টোয়েন্টি খেলেই শেষ হয়ে গিয়েছিল তাঁর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার। ওয়াকার ইউনিসের অধীনে ওই দুই ম্যাচ খেলেই আর পাকিস্তানের জার্সি গায়ে চড়ানো হয়নি তাঁর।

কেন হয়নি? এর পেছনে হাত আছে ওয়াকার ইউনিসের। অন্তত রমিজ রাজা জুনিয়র সেটাই মনে করছেন। ওয়াকার আঞ্চলিকতাদুষ্ট মানুষ, এমনটাই বলেছেন এই ক্রিকেটার।

রমিজের মতে, তিনি করাচির বলেই ওয়াকার তাঁকে সহ্য করতে পারতেন না। ওয়াকার নিজে পাঞ্জাব এলাকার মানুষ, ‘একবারই জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক সফরে গিয়েছিলাম। সে সফরে আমি ওয়াকারের কাছ থেকে বাজে ব্যবহারের শিকার হয়েছিলাম। কারণ আমি করাচির ছেলে। সেই সফরটা আমার জন্য দুঃস্বপ্ন ছিল। আমি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দেশে ফিরতে চেয়েছিলাম।’

দলে টিকতে হলে পাঞ্জাবি ভাষা শিখতে হবে, রমিজকে এমন কথাও নাকি বলেছিলেন ওয়াকার, ‘তিনি আমাকে বলেছিলেন, দলে টিকতে চাইলে পাঞ্জাবি ভাষা শিখতে হবে। তাঁরা প্রত্যেকটা টিম মিটিংয়ে পাঞ্জাবি ভাষায় কথা বলতেন। একদিন আমি সোহেল ভাইয়ের (করাচি থেকে আসা আরেক ক্রিকেটার সোহেল খান) সঙ্গে অনুশীলন করতে চেয়েছিলাম, তিনি আমাকে যেতে দেননি। বলেছিলেন, এটা করাচির দল না।’

কিছুদিন আগে ওয়াকারকে নিয়ে উমর আকমল বলেছিলেন, ‘ওয়াকারকে নিয়ে আকমলের অভিযোগটা এ রকম, ‘আমি ইমরান খানের কাছে অনুরোধ করেছিলাম যে আমাকে যেন তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে পাঠানোর সুপারিশ তিনি টিম ম্যানেজমেন্টকে করেন। ইমরান ওয়াকার ইউনিসকে প্রশ্ন করেছিলেন, কেন আমি টপ অর্ডারে নেই। ওয়াকার কেন পাকিস্তান দলের প্রধান কোচ হলেন, সেটা আমি বুঝে উঠতে পারিনি।’


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন