শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২

চট্টগ্রাম কাস্টমস স্পোর্টসে আটকে শিরোপা জয়ের অপেক্ষা বাড়ল উদয়নের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

০৭ অক্টোবর ২০২২, ১০:২৭ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রাম কাস্টমস স্পোর্টসে আটকে শিরোপা জয়ের অপেক্ষা বাড়ল উদয়নের

চট্টগ্রাম কাস্টমস স্পোর্টসের সাথে অপ্রত্যাশিত এক ড্রয়ে শিরোপা জয়ের অপেক্ষা বেড়েছে মাদারবাড়ী উদয়ন সংঘের। অষ্টম রাউন্ডের খেলায় তারা ১-১ গোলে কাস্টমস স্পোর্টস ক্লাবের সাথে ড্র করে। এ ড্রয়ের ফলে উদয়নকে শিরোপা জয়ের জন্য লিগে নিজেদের শেষ খেলা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। আগামী ১২ অক্টোবর উদয়ন মোকাবেলা করবে বিসিআইসিকে। এ খেলায় জিতলেই মাদারবাড়ী উদয়ন সংঘের লিগ শিরোপা নিশ্চিত হবে। 

৮ খেলা শেষে উদয়ন সংঘের এখন পয়েন্ট ১৬। শিরোপার জন্য শেষ খেলায় জিতলে পয়েন্ট দাঁড়াবে ১৯। এই পয়েন্ট নিয়েই তারা চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে। কাছাকাছি থাকা ব্রাদার্স ইউনিয়ন ৮ খেলায় ১৫ পয়েন্ট পেয়েছে। শেষ খেলা জিতলে তাদের পয়েন্ট হবে ১৮। কোয়ালিটির পয়েন্ট ১৪। তারাও শেষ খেলায় জিতলে হবে ১৭ পয়েন্ট। অন্যদিকে সিটি কর্পোরেশন এবং শতদলের আছে ৭ খেলা শেষে ১২ পয়েন্ট। তারা বাকি দুটি ম্যাচ জিতলে পাবে ১৮ পয়েন্ট। সুতরাং অন্যদের চাইতে উদয়নের সুযোগটাই বেশি। শেষ ম্যাচ জিতলেই তারা শিরোপা নিজেদের করে নিতে পারবে। আর যদি ড্র কিংবা পরাজিত হয় তবে শিরোপার আশা ত্যাগ করতে হবে উদয়নকে।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলায় শিরোপা নিশ্চিত করার প্রত্যাশা নিয়ে মাঠে নেমেছিল মাদারবাড়ী উদয়ন সংঘ। গোল করে এগিয়েও যাচ্ছিল ঠিক ঠিক মতো। কিন্তু খেলার শেষ দিকে এসে হতাশায় ডুবতে হয় তাদের। খেলা ড্র হয়ে যায়।

খেলার শুরু থেকেই মাদারবাড়ী উদয়ন সংঘ চাপ সৃষ্টি করে প্রতিপক্ষ কাস্টমস স্পোর্টস ক্লাবের উপর। কিন্তু খেলার ৬ মিনিটে ছোট একটি ভুল করেন উদয়ন কিপার ইছহাক আকন্দ। তিনি বক্সে অনেকটা আলতোভাবে বল পাস দেন সতীর্থ ডিফেন্ডারকে। যা ছিনিয়ে নিতে উদ্যেত হন সামনে থাকা কাস্টমস স্টাইকার সাইফ। কিন্তু উদয়নের সৌভাগ্য তাদের রক্ষণভাগ দ্রুততার সাথে বল ক্লিয়ার করে দেন। এরপর খেলায় প্রাধান্য বিস্তার করে উদয়ন সংঘ।

১৭ মিনিটে তাদের আক্রমণ থেকে বল পান জাতীয় তারকা মামুনুল ইসলাম। বক্সের একটু বাইরে থেকে তার নিপুন শট ক্রসবার উঁচিয়ে যায়। ২০ মিনিটে আনিছের একটা প্রচেষ্টা কাস্টমস কিপার মেহেদী বাঁচিয়ে দেন। ২৬ মিনিটে গোল করে বসে উদয়ন সংঘ। মামুনের বাড়ানো বল বক্সে ড্রপ খায়। কাস্টমস কিপার মেহেদী বল গ্রিপে না নিয়ে ঠেকিয়ে দেন। বল যায় সামনে। আর সামনেই ছিলেন উদয়নের তানিন সরকার। সুযোগ সন্ধানী তানিন শটে গোল করতে ভুল করেননি (১-০)। ৩৪ মিনিটে উদয়নের আকাশ লম্বা শট নেন। বারের উপর দিয়ে চলে যায় তা। ৪০ মিনিটে মামুনের রেইনবো কর্নার শট কিপার ফিষ্ট করে রক্ষা করেন। ৪৪ মিনিটে আবারো মামুনের ডান পায়ের শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

এক গোলে এগিয়ে থাকা উদয়ন সংঘ দ্বিতীয়ার্ধে খেলতে নেমে কাস্টমসের চ্যালেঞ্জের সামনে পড়ে। তারাও দুই উইং দিয়ে মাঝেই মাঝেই আক্রমণে উঠতে থাকে। অবশ্য ৪৮ মিনিটে উদয়নের আকাশের দু’দফা প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। ৫৫ মিনিটে সেই আকাশের ক্রস থেকে আরিফুরের হেড সাইডবারে লেগে প্রতিহত হলে একটি নিশ্চিত সুযোগ হারায় উদয়ন সংঘ। ৬১ মিনিটে কাস্টমস আক্রমণে উঠে। বাম দিক থেকে এগিয়ে যাওয়া সাইফের শট সাইডবার ঘেষে চলে যায়। ৬৭ মিনিটে উদয়নের আকাশ বল দেন নাহিয়ানকে। নাহিয়ান মিস করেন। ৮৫ মিনিটে কাস্টমসের আক্রমনে বল ধরে নেন উদয়ন কিপার ইছহাক। কাস্টমস এসময় বেশ চাপ সৃষ্টি করে উদয়নের রক্ষণভাগের উপর। 

ইনজুরি টাইমের শেষ মুহূর্তে অপ্রত্যাশিত কান্ড ঘটায় তারা। সাইফের বাড়ানো বল উদয়ন গোলমুখে পড়লে গোলকিপার ইছহাক এবং রক্ষণভাগের রিমনের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। শেষ মুহূর্তে কিপার ইছহাক হাত দিয়ে বল ঠেকাতে চেষ্টা করলেও বল তার হাত ছুঁয়ে গোল লাইন অতিক্রম করে। খেলায় আসে সমতা (১-১)। এরপর উদয়ন আক্রমণে উঠলেও তাতে কাজ হয়নি। 

গতকালের খেলায় ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হন কাস্টমস স্পোর্টস ক্লাবের সাইফ। তার হাতে ক্রেস্ট ও নগদ এক হাজার টাকার প্রাইজমানি তুলে দেন সিজেকেএস কাউন্সিলর ডেরিক রেন্ডল্‌ফ।

আজকের খেলা
আজ বিকাল ৩টায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র এবং চট্টগ্রাম মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ব্লুজ পরস্পরের মোকাবেলা করবে। 

ডিএস


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন