মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩

বিশ্বকাপে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কা-ইংল্যান্ড

দেশ স্পোর্টস ডেস্ক

২৬ অক্টোবর ২০২৩, ১১:৩১ পূর্বাহ্ন

বিশ্বকাপে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কা-ইংল্যান্ড

বর্তমান ক্রিকেট বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের এই দুর্দশা হবে সেটি কেউ ঘুণাক্ষরেও কল্পনা করেনি। ইংল্যান্ডের মতো একই দশা আরেক সাবেক চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কারও। বিশ্বকাপে চার ম্যাচ খেলে মাত্র একটাতে জয় পেয়েছে উভয় দল। টুুর্নামেন্টের জন্য তেমন একটা না হলেও নিজেদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এক ম্যাচে আজ বৃহষ্পতিবার মাঠে নামছে ইংল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা। আজ দুপুর আড়াইটায় বেঙ্গালুরুতে শুরু হবে ম্যাচটি।

চার ম্যাচ খেলে মাত্র একটি করে জয় পেয়েছে উভয় দল। ফলে সেমিফাইনাল খেলার সম্ভাবনার সঙ্গে তাদের দূরত্ব বেড়েই চলেছে। এ ম্যাচে যে দল হারবে বিশ্বকাপের পরবর্তী ম্যাচগুলো তাদের জন্য নিয়ম রক্ষার হয়ে যাবে। অন্যদিকে জয়ী দলের সেমিতে খেলার সম্ভাবনা একটু হলেও বাড়বে।

বিশ্বকাপে কার কত দুর্বলতা তা প্রকাশে যেনো দুই দল প্রতিযোগিতায় নেমেছে। তারপরও সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে আশাবাদী হতে পারে শ্রীলঙ্কা। বিশ্বকাপে দুই দল এ পর্যন্ত ১১ বার মুখোুমখি হয়েছে। ইংল্যান্ডের ছয়বারের বিপরীতে শ্রীলঙ্কার জয়ের সংখ্যা পাঁচ। এই পরিসংখ্যানটা ইংল্যান্ডের জন্য আশার আলো। তবে পিছিয়ে নেই শ্রীলঙ্কার। তাদের জন্য আশার আলোর তীব্রতা আরো বেশি। বিশ্বকাপে সর্বশেষ চার ম্যাচের সবকটিতেই দ্বীপ দেশটি জয় পেয়েছে। গত বিশ্বকাপে তো শ্রীলঙ্কার কাছে হারের ফলে তাদের বিশ্বকাপ স্বপ্ন মিইয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল।

দারুণ এক ঝাঁক ব্যাটার নিয়ে ইংল্যান্ড এবারের বিশ্বকাপে এসেছে। কিন্তু ভাগ্যটা কেন জানি তাদের সহায় হচ্ছে না। যার ফলে স্কোরবোর্ডে তাদের রানটাও সমৃদ্ধ হচ্ছে না। ডেভিড মালান, জো রুট, জনি বেয়ারস্টো ঠিক ছন্দটা ফিরে পাচ্ছেন না। ফলে বেশির ভাগ ম্যাচে রান খড়ায় ভুগতে হয়েছে তাদের। একটা মাত্র ম্যাচে ইংলিশ ব্যাটাররা রান পেয়েছে। আর সেই ম্যাচেই তারা জয় পেয়েছে।

ব্যাটারদের মতো ইংলিশ বোলারদের একই অবস্থা। কিছুটা ব্যতিক্রম রিস টপলি। কিছুটা প্রভাব বিস্তার করতে পারছেন, দেখা পাচ্ছেন উইকেটের। কিন্তু অন্য বোলাররা তেমন একটা কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারছেন না। তাইতো শীর্ষ দশে ইংল্যান্ডের কোনো বোলার নেই। টপলি ৪ ম্যাচে শিকার করেছেন ৮ উইকেট। আদিল রশিদ নিয়ে এত আলোচনা, উইকেট শিকারের তালিকায় তাকেও খুঁজেও পাওয়া যাচ্ছে।

শ্রীলঙ্কা দলেও রয়েছে এক ঝাঁক ব্যাটার যারা ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেওয়ার সামর্থ্য রাখে। কিন্তু একসঙ্গে তারা জ্বলে উঠতে পারছেন না। তাইতো ইংল্যান্ডের মতো নাজুক অবস্থা তাদের। সাদিরা সামারাবিক্রমা, কুশাল মেন্ডিস, পাথুম নিশাঙ্কা দারুণ ব্যাটিং করছেন। এরই মধ্যে প্রথম দুই ব্যাটার তো একটা করে সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আজ তাদেরই দিকেই তাকিয়ে থাকবে দল।

বোলিংয়ে খুব একটা সুবিধা করতে পারছে না শ্রীলঙ্কার বোলাররা। এর মাঝে কিছুটা ব্যতিক্রম দিলশান মাধুশানকা। সবচেয়ে বেশি উইকেট শিকারের তালিকায় নিজের নামটা ঠিকই উজ্জ্বল করে রেখেছেন। কিন্তু সতীর্থদের কাছে থেকে যোগ্য সহায়তা না পাওয়ায় দলকে সাফল্য এনে দিতে পারছেন না। ৪ ম্যাচে ১১ উইকেট নিয়ে উইকেট শিকারের তালিকায় তৃতীয় স্থানে তিনি।

আজকের ম্যাচের পিচ ব্যাটারদের জন্য উৎসবের হতে পারে। এ মাঠে পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ হয়েছে। দুই দলের সংগ্রহ ছিল ৬৭২ রান।


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন