রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

অধিনায়ক শান্তর ‘অভিষেক’ সেঞ্চুরি, সিলেট টেস্টে চালকের আসনে বাংলাদেশ

দেশ স্পোর্টস ডেস্ক

৩০ নভেম্বর ২০২৩, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

অধিনায়ক শান্তর ‘অভিষেক’ সেঞ্চুরি, সিলেট টেস্টে চালকের আসনে বাংলাদেশ

নেতৃত্বের অভিষেকে সেঞ্চুরিতে ইতিহাস শান্তর, সব মিলিয়ে টেস্টে চার নম্বর সেঞ্চুরি

প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত শুরুর পরও ইনিংস বড় করতে পারেননি। সাজঘরে ফিরেছিলেন বাজে শটে। দ্বিতীয় ইনিংসে এসে সেই আক্ষেপ ঘুচালেন। ১৯২ বলে তিন অঙ্ক ছুঁয়েছেন তিনি। টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে অভিষেকেই সেঞ্চুরি করলেন শান্ত। যা বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম।

ফলে তৃতীয় দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেট হারিয়ে ২১২ রান। সবমিলিয়ে স্বাগতিকদের লিড এখন ২০৫ রানের, হাতে আছে ৭ উইকেট।

এর আগে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমে ধীরগতির শুরু করলেও বেশিক্ষণ টিকেনি বাংলাদেশের ওপেনিং জুটি। ২৬ রান তুলতেই টপ অর্ডারের দুই ব্যাটারকে হারায় স্বাগতিকরা। 

তৃতীয় দিনে এসেও সিলেটের উইকেটে খুব বেশি ভাঙন ধরেনি। তবে প্রথম দুই দিনের তুলনায় আজ সকাল থেকে কিছুটা হলেও বাড়তি টার্ন পাচ্ছেন স্পিনাররা। সেই টার্নেই পরাস্ত হলেন জাকির হাসান। ১৩তম ওভারে অ্যাজাজ প্যাটেলের করা অফ স্টাম্পের বাইরের বল টার্ন করে পায়ে আঘাত হানে। আম্পায়ার আউট দিতে খুব বেশি সময় নেয়নি। ৩০ বলে ১৭ রান করে ফিরেছেন এই ওপেনার।

প্রথম ইনিংসে অল্পের জন্য সেঞ্চুরি হাতছাড়া করেছিলেন মাহমুদুল হাসান জয়। দ্বিতীয় ইনিংসেও দুর্দান্ত শুরু করেছিলেন এই ইনফর্ম ওপেনার। তবে আরো একবার ভাগ্যের কাছে হার মানতে হলো তার। ১৪তম ওভারের শেষ বলে টিম সাউদিকে স্টেট ড্রাইভ করেছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। সেই বল বোলারের হাত ছুঁয়ে উইকেটে গিয়ে লাগে, জয় তখন ছিলেন পিচের বাইরে। ফলে ৪৬ বলে ৮ রান করে রান আউট কাটা পড়েছেন জয়।

শুরুতেই দুই উইকেট হারানোর পর ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। বিশেষ করে তিনে নেমে পাল্টা আক্রমণ করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ফলে সুবিধাজনক অবস্থানে থেকে চা বিরতিতে যায় বাংলাদেশ।

বিরতি থেকে ফিরেও ভালোভাবেই এগোচ্ছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত-মুমিনুল হক জুটি। কিন্তু হঠাৎ দ্রুত সিঙ্গেলস নিতে গিয়ে বিপদ ডেকে আনলেন মুমিনুল। তিনি সাজঘরে ফেরায় তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

৪১তম ওভারের শেষ বলটি 'ভি' জোনে খেলে দ্রুত সিঙ্গেলস নিতে চেয়েছিলেন মুমিনুল, তার ডাকে শুরুতে সাড়া দেন শান্ত। কিন্তু বল সরাসরি মিড অনের ফিল্ডারের হাতে যাওয়ায় আবার পিচের ভেতর ফিরে আসেন অধিনায়ক, কিন্তু মুমিনুল আর সময়মতো ফেরত যেতে পারেননি। ৪০ রান করে মুমিনুল ফেরায় ভাঙে ৯০ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি।

এরপর দিনের বাকিটা সময় মুশফিককে সঙ্গে নিয়ে নিরাপদে পার করেছেন শান্ত। আর কোনো উইকেট হারায়নি বাংলাদেশ। 


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন