রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

পাইরেটস অব চিটাগাংকে তৃতীয় হার ‘উপহার’ দিয়ে বন্দরের প্রথম জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৫:৩৪ অপরাহ্ন

পাইরেটস অব চিটাগাংকে তৃতীয় হার ‘উপহার’ দিয়ে বন্দরের প্রথম জয়

চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের চতুর্থ রাউন্ডে এসে প্রথম জয়ের দেখা পেল চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ ক্রীড়া সমিতি। অন্যদিকে, চার খেলায় পাইরেটেস অব চিটাগাং এর এটি তৃতীয় পরাজয়।

শনিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলায় চবক ক্রীড়া সমিতির কাছে ৩৭ রানে হারে পাইরেটস। 

টসে জিতে পাইরেটস আগে ফিল্ডিং করতে নামে। ইনিংসের পঞ্চম ওভারেই বন্দরের  সাব্বির হোসাইনকে আউট করে সফলতা এনে দেন নাহিদুল ইসলাম। ১২ ওভারের মাথায় নাজিম উদ্দিন সাব্বিরকে আউট করে নিজের প্রথম উইকেট তুলে নেন সাজিদ আব্দুল্লাহ। দুই সাব্বিরের বিদায়ের পর বন্দরের হাল ধরেন মামুন, রাসেল ও তারেক কামাল। তিন জনই দেখা পান অর্ধ শতকের।  

এর মধ্যে মামুন ম্যাচ সর্বোচ্চ ৬১ রান করেন। ৬৯ রানের বলে তিনি বলকে সীমানা ছাড় করান ৮ বার, যার মধ্যে একবার হাওয়ায় ভাসিয়ে। এছাড়া, রাসেল ৮৪ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৫০ রান করে টিপু সুলতানের প্রথম শিকারে পরিণত হন। তারেক কামালের ৫৬ বলে ৫১ রানের ইনিংসে ছিল ৩টি করে চার ও ছয়। তিনিও আউট হন টিপু সুলতানের বলে।

এ তিন জন ছাড়া আর কেউ বলার মতো রান না পাওয়ায় ইনিংসের ৪ বল বাকি থাকতেই বন্দর অলআউট হয়ে যায় ২৩৮ রানে। 

পাইরেটস-এর হয়ে সাজিদ আব্দুল্লাহ ও টিপু সুলতান উভয়ই নেন ৪টি করে উইকেট।

বন্দরের রান পাড়ি দিতে গিয়ে পাইরেটসকে দারুণ সূচনা এনে দেন জাতীয় তারকা সাদমান ইসলাম ও আরমান উল্লাহ। ১৯.৫ ওভারে এ দুজন দলকে এনে দেন ৮২ রান। ৫৬ বলে ৪৪ রান করা সাদমানতে তুলে নেন বন্দরের আরিফ। ৯৫-এর মাথায় আরমানকেও (৭২ বলে ৩৫ রান) সাজঘরে ফেরত পাঠান আরিফ। এরপর পাইরেটস-এর মিডল অর্ডারের বাকি ব্যাটাররা সেট হয়ে আউট হয়ে গেলে বন্দরে নোঙর ফেলা সম্ভব হয়নি তাদের। 

পাইরেটস-এর ব্যাটসম্যানদের মধ্যে আলিফ ২৯, মাহমুদুল হাসান জয় ১৩, নাঈম ইসলাম ৩৭ ও রুবেল ১১ রান করেন। 

বন্দরের আরিফ আহমেদ ৩২ রানে তুলে নেন ৫ উইকেট।

    


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন