শুক্রবার, ৭ অক্টোবর ২০২২

২০৮ রান করেও অস্ট্রেলিয়াকে আটকাতে পারেনি ভারত

১ম টি-টোয়েন্টি

ক্রীড়া প্রতিবেদক

২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৩০ অপরাহ্ন

২০৮ রান করেও অস্ট্রেলিয়াকে আটকাতে পারেনি ভারত

হার্দিক পাণ্ডিয়ার ব্যাটিং তাণ্ডবে ২০৮ রান করেও হারের স্বাদ পেল ভারত। অস্ট্রেলিয়ার ভারত সফরের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভারতকে ৪ উইকেটে হারায় অস্ট্রেলিয়া।

ভারতের রান-পাহাড় ডিঙাতে যেরকম উড়ন্ত সূচনার দরকার সেটিই দলকে এনে দেন অজিদের দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ ও ক্যামেরন গ্রিন। ১৩ বলে ২২ রান করে ফিঞ্চ যখন আউট হয়ে যান তখন অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৩.৩ ওভারে ৩৯ রান। সেখান থেকে দলকে টপ গিয়ারে রেখে রান তাড়ায় সচল রাখেন গ্রিন ও স্মিথ। মাত্র ২৬ বলে গ্রিন তুলে নেন টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি। আউট হওয়ার আগে গ্রিনের ব্যাট থেকে আসে ম্যাচ জয়ী ৬১ রানের ইনিংস। মাত্র ৩০ বলের মধ্যে ৪টি ছিল বড় ছয়ের মার। চার ছিল ছয়ের দ্বিগুণ। 

গ্রিন আউট হওয়ার পরের ওভারে ২৪ বলে ৩৫ রান করে সাজঘরে ফিরে যান স্টিভেন স্মিথ। এর পরের দু’ওভারে দারুনভাবে খেলায় ফিরে আসে অস্ট্রেলিয়া। পর পর তুলে নেয় ম্যাক্সওয়েল ও জশ ইংলিশের উইকেট। তবে ভারতের আশাকে হতাশায় পরিণত করেন সাবেক অধিনায়ক ম্যাথু ওয়েড। তিনি ২১ বলে ২ ছয় আর ৬ চারে ৪৫ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন। জয় থেকে ২ রান দূরে থাকতে অবশ্য আউট হয়ে যান অভিষিক্ত টিম ডেভিড (১৪ বলে ১৮ রান)।  

এর আগে পাঞ্জাবের ইন্দ্রোজিৎ সিং বিন্দ্রা স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ২০৮ রান সংগ্রহ করেছে ভারত। জয়ের পেতে অ্যারন ফিঞ্চদের করতে হবে ২০৯ রান।

৩০ বল মোকাবিলায় ৭১ রানের দানবীয় ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিলেন হার্দিক পান্ডিয়া। এছাড়া লোকেশ রাহুল ৫৫ ও সূর্যকুমার যাদভ ৪৬ রানের ইনিংস খেলেন। অজিদের পক্ষে ৩০ রান খরচায় সর্বোচ্চ ৩ উইকেট শিকার করেন নাথান ইলিস।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৯ বল মোকাবিলায় ১১ রান করে নিজের উইকেট বিলিয়ে দেন ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। আরেক ওপেনার লোকেশ রাহুল স্বাভাবিক ছন্দে ব্যাট করে গেলেও তাকে সঙ্গ দিতে পারেননি বিরাট কোহলি।

এশিয়া কাপে নিজেদের শেষ ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলেছিলেন কোহলি। ৬১ বল মোকাবিলায় ১২ চার ও ৬ ছক্কায় টি-টোয়েন্টিতে প্রথম সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে অপরাজিত ছিলেন ১২২ রানে। আর পরের ম্যাচেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাটিতে তিনি আউট হয়েছেন ৭ বল মোকাবিলায় মাত্র ২ রান করে।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে রাহুল ও সূর্যকুমার যাদব মিলে দলকে এনে দেন ৬৮ রান। ৩৫ বল মোকাবিলায় ৪ চার ও ৩ ছক্কায় ৫৫ রান করে জশ হ্যাজেলউডের শিকার হন রাহুল। ২৫ বলে ৪৬ রান করা সূর্যকুমারকে ফিফটি স্পর্শ করার আগে সাজঘরে ফেরান ক্যামেরন গ্রিন। ক্রিজে নেমে দলের হাল ধরেন হার্দিক পান্ডিয়া।

তবে তাকে সঙ্গ দিতে পারেননি অক্ষর প্যাটেল ও দিনেশ কার্তিক। পান্ডিয়া অবশ্য নিজে একাই একশো। তাই সতীর্থদের আসা যাওয়ার মাঝে একাই অজি বোলারদের ওপর চাপ সৃষ্টি করে যান। তার দানবীয় ব্যাটিংয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে অজি বোলাররা। শেষ তিন বলে তিনটি বিশাল ছক্কা হাঁকানো ছাড়াও শেষ চার ওভারে কার্তিক ও হার্শালকে সঙ্গে নিয়ে দলকে তিনি এনে দেন ৬২ রান। ৩০ বল মোকাবিলায় ৭ চার ও ৫ ছক্কায় পান্ডিয়া অপরাজিত থাকেন ৭১ রানে। 


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন