মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪

'চির চোকার্স' আফ্রিকাকে হারিয়ে ভারতের ঘরে বিশ্বকাপ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

৩০ জুন ২০২৪, ১২:৩১ পূর্বাহ্ন

'চির চোকার্স' আফ্রিকাকে হারিয়ে ভারতের ঘরে বিশ্বকাপ

দুর্দান্ত খেলে এক দৌঁড়ে সেমিফাইনাল। এরপর একের পর এক সেমিফাইনালে হেরে নিজেদের 'চোকার্স' তকমার প্রতিশব্দ হয়ে উঠে দক্ষিণ আফ্রিকা। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও কোন ম্যাচ না হেরে উঠে আসে সেমিফাইনালে।  তবে চোকার্সের আপাত বিদায় দিয়ে তারা প্রথমবারের মতো উঠে আসে ফাইনালে। কিন্তু ফাইনালে ঠিকই আবার ফিরে গেল 'চোকার্স' শব্দের কাছে।

এভাবে বললে বরং ভারতের প্রতি অবিচার করা হবে। শুরুতে উইকেট হারানোর পরও ফাইনালে ১৭৬ রানের বড় সংগ্রহ করে ভারত। কিন্তু ক্লাসেন-মিলারের জুটির অসাধারন ব্যাটিংয়ে চ্যাম্পিয়ন তখন হাত ছোঁয়া দূরত্বে। কিন্তু সেটি নাগালের বাইরে নিয়ে যান ভারতের বোলার ফিল্ডাররা। ফলে ৭ রানের শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে ১৩ বছর পর আবারও শিরোপা ঘরে ফেরত আনলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম চ্যাম্পিয়নরা।
 
মহেন্দ্র সিং ধোনি মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে নুয়ান কুলাসেকেরার বলে ছয় হাঁকাচ্ছেন, এটাই গত ১৩ বছর ধরে ভারতের ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন হয়ে ছিল। একটা বিশ্বকাপের জন্য এরপর থেকে হন্যে হয়ে ঘুরেছে টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু আসেনি। সাতমাস আগেই নিজেদের মাটিতে হেরেছিল ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনাল। 

সেই আক্ষেপ মিটল নিজ থেকে বহুদূরের মাটিতে। ক্যারিবিয়ান দ্বীপ বার্বাডোজের কড়া রোদের নিচে আরেকবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ভারত। ১৭ বছর আগে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম আসরের শিরোপা ঘরে তুলেছিল ম্যান ইন ব্লুরা। সেটা দিয়েই শিরোপার পথে নেমেছিল ধোনির ভারত। লম্বা অপেক্ষা শেষে আবারও সেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়েই শিরোপাখরা ঘুচালো দলটা। 

বার্বাডোজে উৎসবের মঞ্চ আগেই সাজিয়ে রেখেছিল ভারত। ১৭৬ রানের শক্ত সংগ্রহ তারা দাঁড় করায় ফাইনালের মঞ্চে। বল হাতে শুরুটাও ছিল চ্যাম্পিয়নদের মতোই। মাঝে কুইন্টন ডি কক আর হেনরিখ ক্লাসেন দাঁড়ালেন দেয়াল হয়ে। এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকার জয়টাও ছিল সময়ের ব্যাপার। 

কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার নামের পাশে যে লেগে আছে চোকার্স তকমা। ২৪ বলে ২৬ রানের সমীকরণটাই আর মেলানো হয়নি তাদের। আর্শদ্বীপ সিং আর জাসপ্রিত বুমরাহ একের পর এক ডট ডেলিভারিতে চাপ বাড়িয়েছেন। সঙ্গী ছিলেন হার্দিক পান্ডিয়া। স্নায়ুচাপের লড়াইয়ে জয় হলো ভারতেরই। 

শেষ ওভারে দরকার ছিল ১৬ রান। হার্দিক পান্ডিয়ার ওই ওভারের প্রথম বলেই বাউন্ডারি লাইনে মিলারকে দুর্দান্ত এক ক্যাচে ফেরালেন সুর্যকুমার যাদব। দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ শেষ হয়ে গেল সেখানেই। শেষ ওভারে এলো ৮ রান। ব্যর্থ হলো হেনরিখ ক্লাসেনের ২৭ বলে ৫৪ রানের দুর্দান্ত সেই ইনিংস। ৭ রানের জয়ে বিশ্বকাপের নতুন চ্যাম্পিয়ন ভারত।


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন