মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

দুরন্ত আবাহনীর দুর্দান্ত জয়, অপেক্ষা বাড়ল কিংসের

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ জুলাই ২০২২, ০৯:১১ অপরাহ্ন

দুরন্ত আবাহনীর দুর্দান্ত জয়, অপেক্ষা বাড়ল কিংসের

বসুন্ধরা কিংসের অপেক্ষা বাড়ছেই। ১৮ জুলাই মুন্সীগঞ্জের মাঠে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে হারালেই হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়ন আশা পূর্ণ হবে তাদের। ওই ম্যাচে না হলেও হাতে থাকবে আরও দুটি ম্যাচ। সে দুটি ম্যাচ ঢাকা আবাহনী ও শেখ জামাল ধানমন্ডির সঙ্গে।

 অবশ্য তিন ম্যাচ হাতে রেখে আজই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়ন হয়ে যেতে পারত কিংস। ঢাকা আবাহনীর বিপক্ষে অঘটন ঘটিয়ে যদি আজ জিততে পারত স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘ। কিন্ত আজ কুমিল্লা শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে তীব্র গরমে মধ্যে আবাহনীর সামনে ৪–১ গোলে উড়ে গেছে স্বাধীনতা। 

২০ ম্যাচে আবাহনীর পয়েন্ট হলো ৪৪। ১৯ ম্যাচে কিংসের ৪৮। ২২ ম্যাচের লিগে অঙ্কের হিসাবে আবাহনী এখনো চ্যাম্পিয়ন হতে পারে। তবে শর্ত হলো, কিংসকে হারতে হবে তাদের শেষ ৩ ম্যাচই। এতটা আশা আবাহনীও বোধহয় করছে না। তাই বাস্তবতা মেনে রানার্সআপ হওয়ারই চেষ্টা করছে দলটি।

আরও পড়ুন: আবাহনী হারলেই হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা

সেই লক্ষ্য পূরণে আজ স্বাধীনতার বিপক্ষে বড় জয়ে জোড়া গোল করেছেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার দরিয়েলতন গোমেজ। বাকি দুটি গোলও দুই বিদেশির—দানিয়েল কলিনদ্রেস ও রাফায়েল আগুস্তো।

প্রথমার্ধের মাঝপথেই আকাশি নীলেরা ২-০ করে ফেলেছে। তখনই তারা জয় দেখতে পাচ্ছিল। প্রথম গোলটি দানিয়েল কলিনদ্রেসের। বক্সের ওপর থেকে তাঁর বুদ্ধিদীপ্ত শটে ১-০। দ্বিতীয় গোল এসেছে দরিয়েলতনের পা থেকে। স্বাধীনতার এক ডিফেন্ডারের ভুলে বক্সের ভেতর বল পেয়ে যান দরিয়েলতন, বাকি কাজটা করেন কোনাকুনি প্লেসিংয়ে।

তবে দুই গোলে পিছিয়েও হাল ছাড়েনি পয়েন্ট তালিকার তলানিতে থাকা স্বাধীনতা। অবনমন বাঁচাতে এই ম্যাচ থেকে দলটির পয়েন্ট দরকার ছিল। বিরতির ঠিক আগে তারা একটি গোলও শোধ করেছে। বক্সে ভেসে আসা ক্রস থেকে দারুণ এক ড্রাইভিং হেডে বল জালে পাঠান জাপানি ফরোয়ার্ড সুজুকি।

বিরতির পর দরিয়েলতন করেন ৩–১। এবার নাবিব নেওয়াজের বাড়িয়ে দেওয়া বল ধরে বক্সে ঢুকে সহজেই স্বাধীনতা গোলকিপারকে পরাস্ত করেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার। মূলত আজ তাঁর কাছেই হেরে গেল স্বাধীনতা। লিগে দরিয়েলতনের গোল হয়ে গেল ১৪টি। ১৮ গোল নিয়ে চট্টগ্রাম আবাহনীর পিটার থ্যাংকগড রয়েছেন সবার উপরে। ম্যাচ বাকি আর তিনটি। দরিয়েলতন যেভাবে গোল করছেন, সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার চেষ্টা তিনি করতেই পারেন। চোটের কারণে বেশ কিছু ম্যাচে মাঠের বাইরে না থাকলে এবারের লিগে সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার সম্ভাবনা ছিল দরিয়েলতনেরই। সর্বশেষ ৪ ম্যাচে ৭ গোল পেয়েছেন তিনি।

ম্যাচের শেষ দিকে চোখধাঁধানো এক গোল দেখেছেন গরমে হাঁসফাঁস করা কুমিল্লার দর্শকেরা। রাফায়েল আগুস্তো আর দরিয়েলতনের নিখুঁত পায়ের কাজ ছিল মুগ্ধ হওয়ার মতো। ডান দিকে বল পেয়ে কিছুটা দৌড়ে বক্সের বাইরে এসে রাফায়েল থ্রু বাড়িয়ে দেন সামনে। দরিয়েলতন বক্সে ঢুকে শট নিতে পারতেন। কিন্তু পাশে থাকা দুই ডিফেন্ডার ও সামনে থাকা গোলকিপারকে একদম স্তব্ধ করে দেন দরিয়েলতন। ব্যাক ফ্লিক করে বল পাঠালেন ততক্ষণে বক্সে ঢুকে পড়া রাফায়েলের কাছে। গায়ে সেঁটে থাকা ডিফেন্ডারকে পাত্তা না দিয়ে বাঁ পায়ের শটে রাফায়েলের লক্ষ্যভেদ।


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন