মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২

বিভাগীয় হ্যান্ডবলে চট্টগ্রাম জেলার সামনে উড়ে গেল চাঁদপুর ও ফেনী

শেখ কামাল কাপের উদ্বোধন

ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৭ অক্টোবর ২০২২, ১০:৫৬ অপরাহ্ন

বিভাগীয় হ্যান্ডবলে চট্টগ্রাম জেলার সামনে উড়ে গেল চাঁদপুর ও ফেনী

শেখ কামাল কাপ চট্টগ্রাম বিভাগীয় হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম জেলার সামনে উড়ে গেছে চাঁদপুর ও ফেনী জেলা। একই দিনে জিতেছে বান্দরবান, খাগড়াছড়ি জেলা ও চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড। প্রতিযোগিতার প্রথম দিনেই ৭টি খেলা সম্পন্ন হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে, পোলার এর পৃষ্ঠপোষকতায় চট্টগ্রাম বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স মাঠে সোমবার (১৭ অক্টোবর) উদ্বোধন হয়েছে শেখ কামাল কাপ চট্টগ্রাম বিভাগীয় হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতা। 

বিকাল ৪টায় প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মো. আশরাফ উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ হ্যান্ডবল ফেডারেশনের সহসভাপতি আ ন ম ওয়াহিদ দুলাল এবং সিজেকেএস কার্যনির্বাহী সদস্য ও হ্যান্ডবল কমিটির চেয়ারম্যান সৈয়দ আবুল বশর। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সিরাজউদ্দিন মো. আলমগীর, যুগ্ম সম্পাদক নজরুল ইসলাম লেদু, কোষাধ্যক্ষ নোমান আল মাহমুদ, বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদিকা শর্মিষ্ঠা রায়, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের উপ-পরিচালক মো. আসলাম হোসেন খান, হ্যান্ডবল ফেডারেশনের সদস্য থুই সিং প্রু, টুর্নামেন্টের সমন্বয়কারী কল্লোল দাশ প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন টুর্নামেন্ট কমিটির সদস্য সচিব আসলাম মোর্শেদ। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার মো. আশরাফ উদ্দিন বলেন, ‘শেখ কামাল একজন সফল ক্রীড়াবিদ, ক্রীড়ানুরাগী ও ক্রীড়া সংগঠক। তাঁর নামে এই প্রতিযোগিতার নামকরণটি যথাযথ হয়েছে। তিনি উপস্থিত কর্মকর্তা, খেলোয়াড়সহ সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।’

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সিরাজউদ্দিন মো. আলমগীর তাঁর বক্তব্যে অংশগ্রহনকারী দল সমূহকে ধন্যবাদ জানান এবং প্রতিযোগিতায় পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য পোলারকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। 

প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে করোনাকালীন বিশেষ অনুদানের চেক চট্টগ্রামের ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংগঠকদের মধ্যে বিতরণ করা হয়। 

এক নজরে প্রথম দিনের খেলার ফলাফল :
১ম খেলা - বান্দরবান জেলা (৩৫ গোল) বনাম চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (২০ গোল) 
২য় খেলা - ফেনী জেলা (৮ গোল) বনাম খাগড়াছড়ি জেলা (১১ গোল)
৩য় খেলা - চট্টগ্রাম জেলা (২৭ গোল) বনাম চাঁদপুর জেলা (২ গোল)
৪র্থ খেলা - কক্সবাজার জেলা (৫ গোল) বনাম চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (২৩ গোল)
৫ম খেলা - বান্দরবান জেলা (১৮ গোল) বনাম কক্সবাজার জেলা (২ গোল)
৬ষ্ঠ খেলা - ফেনী জেলা (৬ গোল) বনাম চট্টগ্রাম জেলা (২৩ গোল)
৭ম খেলা - চাঁদপুর জেলা (৬ গোল) বনাম খাগড়াছড়ি জেলা (৭ গোল)


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন