রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আবুধাবি ট-টেনে বাংলা টাইগার্সের শ্বাসরুদ্ধকর জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক

০৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ১০:৩৫ অপরাহ্ন

আবুধাবি ট-টেনে বাংলা টাইগার্সের শ্বাসরুদ্ধকর জয়

দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের পর আবারও খেয় হারিয়ে ফেলেছিল বাংলা টাইগার্স। কিন্তু নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে এসে শেষ বলে শ্বাসরুদ্ধকর এক জয় তুলে নিল বাংলা টাইগার্স। মাত্র ২ রানে তারা হারায় নর্দান ওয়ারিয়র্সকে।

রোববার (৩ ডিসেম্বর) আবুধাবির শেখ জায়েদ ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আবুধাবি টি-১০ এর ১৬তম ম্যাচে টানা চতুর্থবারের মতো টসে হেরে যায় বাংলা টাইগার্স।

ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে গিয়ে দ্বিতীয় ওভারে অভিষেক ফার্নান্ডোকে হারায় বাংলা টাইগার্স। এরপর কুশল মেন্ডিস আর জর্ডান কক্স মিলে বাংলা টাইগার্সকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন। মাত্র ৪ ওভারেই তারা দলের রান নিয়ে যান ৬৯-এ। ২০ রান করা মেন্ডিসের আউটের পর উইকেটে আসেন আগের তিন ম্যাচে রান না পাওয়া ডেভিড মিলার। 

মিলার প্রথমে একটু রয়ে-সয়ে শুরু করলেও খুব দ্রুতই নিজের জাত চেনাতে শুরু করেন। মাত্র ২৪ বলে এক হালি চার আর তিনটি বিশাল ছয়ে তুলে নেন ফিফটি। অবশ্য মিলারের আগে ব্যাটে ধারাবাহিকতা ধরে রেখে তিনটি করে চার-ছয়ে ১৬ বলে ৩৫ রান করে আউট হয়ে যান জর্ডান কক্স।

ফলে, নির্দিষ্ট ১০ ওভার শেষে বাংলা টাইগার্সের সংগ্রহ গিয়ে দাঁড়ায় ১৩৭ রান।

জবাব দিতে নেমে নর্দান ওরিয়র্সকে ঝোড়ো সূচনা এনে দেন লুইস ও হজরতুল্লাহ জাযাই। এ দুজন মাত্র ৩ ওভারে দলের রান নিয়ে যান ৫৪-তে। লুইসের বিদায়ে তাদের জুটি ভাঙলেও খুনে মেজাজে ব্যাট করতে থাকেন হজরতুল্লাহ জাযাই। তিনি আউট হওয়ার আগে ২০ বলে সমান ৫টি করে চার-ছয়ে ৫৭ রান করেন। 

তখনো ম্যাচ ছিল ওয়ারিয়র্সের হাতে। কিন্তু বাংলা টাইগার্সের বোলাররা শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়ার মানসিকতা ধরে রাখেন। ফলে শেষ ওভারে ১৬ রান নিতে গিয়ে ২ রান আগেই থেমে যেতে হয় ওয়ারিয়র্সকে।

শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে খুশিতে কথা বলতে পারছিলেন না বাংলা টাইগার্সের কর্ণধার, ক্রীড়া সংগঠক মোহাম্মদ ইয়াসিন চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘অবিশ্বাস্য এক জয় উপহার দিল দলের খেলোয়াড়েরা। বড় স্কোর গড়েও স্বস্তিতে থাকতে দেয়নি ওয়ারিয়র্সের ব্যাটাররা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পেরেছি। ছুটির দিনে স্টেডিয়ামে এসে আনন্দ-উল্লাসে ঘরে ফিরেছে প্রবাসী বাঙালিরা।' 

বাংলা টাইগার্সের পরবর্তী খেলা ৪ ডিসেম্বর টিম আবুধাবির সাথে।


সর্বশেষ

উপরে নিয়ে চলুন